Search This Blog

Theme images by MichaelJay. Powered by Blogger.

Blog Archive

Thursday, December 1, 2016

তুমি কোন পথে এলে হে মায়াবী কবি

৫৭


কীর্তন


  



তুমি

কোন পথে এলে হে মায়াবী কবি



  

          বাজায়ে বাঁশের বাঁশরি



এল

রাজ-সভা ছাড়ি ছুটি গুণিজন



  

          তোমার সে সুরে পাশরি॥



তোমার

চলার শ্যাম বনপথ



  

          কদম-কেশর-কীর্ণ,



তুমি

কেয়ার বনের খেয়া-ঘাটে হলে



  

          গোপনে কি অবতীর্ণ?



তুমি

অপরাজিতার সুনীল মাধুরী



  

দুচোখে আনিলে করিয়া কি চুরি?



তোমায়

নাগ-কেশরের ফণী-ঘেরা মউ



  

          পান করাল কে কিশোরী?



  

জনপুরী যবে খল-কোলাহলে



  

মগ্নোৎসব রাজসভাতলে,



তুমি

একাকী বসিয়া দূর নদী-তটে



  

          ছায়া-বটে বাঁশি বাজালে,



তুমি

বসি নিরজনে ভাঁট ফুল দিয়া



  

          বালিকা বাণীরে সাজালে॥



যবে

রুদ্র আসিল ডম্বরু-করে



  

ত্রিশূল বিঁধিয়া নীল অম্বরে



তুমি

ফেলিয়া বাঁশরি আপনা পাশরি



  

          এলে সে প্রলয়-নাটে গো,



তুমি

প্রাণের রক্তে রাঙালে তোমার



  

          জীবন-গোধূলি পাটে গো॥



  

হে চির-কিশোর, হে চির-তরুণ,



  

চির-শিশু চির-কোমল করুণ!



  

          দাও অমিয়া আরও অমিয়া,



দাও

উদয়-উষারে লজ্জা গো তুমি



  

          গোধূলির রঙে রঙিয়া!



  

প্রখর রবি-প্রদীপ্ত গগনে



  

তুমি রাঙা মেঘ খেল আনমনে,



  

উৎসব-শেষে দেউলাঙ্গনে



  

          নিরালা বাজাও বাঁশরি,



আমি

স্বপন-জড়িত ঘুমে সেই সুর



  

          শুনিব সকল পাশরি॥

No comments:
Write comments

Interested for our works and services?
Get more of our update !